দুই বৌএ ভোটের লড়াই হেমতাবাদে


সোমবার,২৩/০৪/২০১৮
453

বাংলা এক্সপ্রেস ,উত্তর দিনাজপুর: উত্তরদিনাজপুর জেলার হেমতাবাদ ব্লকের ১৬ নম্বর জেলা পরিষদ আসন থেকে এবার দুই বৌ প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তাঁদের মধ্যে একজন জেলা মহিলা কংগ্রেস সভানেত্রী তথাহেমতাবাদ ব্লক কংগ্রেস সভাপতি গোপালমজুমদারের স্ত্রী শিবানী মজুমদার।

অপরজন তৃণমূল যুব কংগ্রেসের জেলা সভাপতি তথাজেলা পরিষদের সদস্য গৌতম পালের স্ত্রী পম্পা পাল। দু’পক্ষ ইতিমধ্যেই প্রচারে নেমে পড়েছে।জোটপ্রার্থী শিবানীদেবীর হয়ে সিপিএম
কর্মীরাও প্রচার শুরু করেছেন। জেলার অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ আসনটিতে জয় আনতে
একদিকে কংগ্রেস, সিপিএম এবং অন্যদিকে তৃণমূলমরিয়া হয়ে উঠেছে। গৌতমবাবু জেলায় দাপুটে নেতা হিসেবেই পরিচিত। তৃণমূল যুব কংগ্রেসের জেলা সভাপতি গৌতম পালের স্ত্রী পম্পা পালের জোট
প্রার্থী শিবানীদেবী বলেন, মনোনয়ন জমা করেই প্রচারে নেমে গিয়েছি। সিপিএমকর্মী রাও  আমার সঙ্গে প্রচারে যাচ্ছেন।

অবাধ ও শান্তিপূর্ণ ভোট হলে ওই  আসনে আমিই জয়ী হব।কারণ চারদিকে যা হচ্ছে তাতে শাসকদলের উপরে সাধারণ মানুষ আস্থাহারাচ্ছেন। হেমতাবাদ ব্লক কংগ্রেস সভাপতি
গোপাল মজুমদারের স্ত্রী শিবানী মজুমদারওই আসনের তৃণমূল প্রার্থী পম্পাদেবী  বলেন,রাজ্যজুড়ে যেভাবে উন্নয়ন হচ্ছে তাতে মানুষ তৃণমূল ছাড়া আর কাউকে ভোট দেবে বলে মনেহয় না। ভোটাররা যথেষ্ট সচেতন। তাইআমাদের পক্ষেই ভোট পড়বে। গৌতমবাবুবলেন, এখানকার বাম বিধায়ক এবং সংসদ সদস্য এলাকার উন্নয়ন করতে পারেননি।আমরা ক্ষমতা পেলে রাস্তা, পানীয় জল,কৃষিসেচের ব্যবস্থা করব। শ্মশান ও
কবরস্থানেরও উন্নয়ন করা হবে।সিপিএমের হেমতাবাদ এরিয়া কমিটির  সম্পাদক স্বপন ঘোষ বলেন, ওই আসনে কংগ্রেসের সঙ্গেআমাদের জোট হয়েছে। আমরা শিবানীদেবীরহয়ে প্রচার করছি।স্বচ্ছতা রেখেই এলাকারউন্নয়ন হবে।

বিধায়ক ও সংসদ সদস্যের এলাকাউন্নয়নের বরাদ্দ টাকা প্রশাসনের ঘর থেকেআসতে দেরির কারণেই উন্নয়ন ব্যাহতহচ্ছে। পাল দম্পতি মূলত ইটাহারের বাসিন্দা গৌতমবাবু আগেরবার ইটাহারের যে আসনথেকে দাঁড়িয়ে জয়ী হয়েছিলেন সেটি এবারেমহিলাদের জন্য সংরক্ষিত হয়েছে। ফলে তিনিসেখানে দাঁড়াতে পারেননি। দল তাঁর স্ত্রীকেহেমতাবাদের ১৬ নম্বর আসনে টিকিট দিয়েছে।এই আসনটি চইনগর, বিষ্ণুপুর ও নওদা গ্রামপঞ্চায়েত নিয়ে গঠিত। এখানে মোট ৪৭টি বুথরয়েছে।

নির্বাচনী এলাকায় পরিচিতি বাড়াতেপ্রার্থী স্ত্রীকে নিয়ে তিনি বিভিন্ন জায়গায় সকালথেকেই প্রচারে যাচ্ছেন।শিবানীদেবী রাজনীতিতে নতুন মুখ নন। এরআগে ২০০৩-২০০৮ সাল পর্যন্ত তিনি গ্রামপঞ্চায়েত সদস্য ছিলেন। ২০০৮-২০১৩ সালপর্যন্ত হেমতাবাদ পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতিছিলেন প্রসঙ্গত, এই আসনটিতে গতবার ভোটেকংগ্রেস প্রার্থী জয়ী হয়েছিলেন। পরবর্তীতে ওইসদস্য তৃণমূলে যোগদান করেন।

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট