সামাজিক সুরক্ষা যোজনায় অনলাইন রেজিস্ট্রেশন প্রকল্পের সূচনা করেন ঝাড়গ্রামের বিধায়ক ড: সুকুমার হাঁসদা


বুধবার,০৮/০৮/২০১৮
501

বাংলা এক্সপ্রেস---

ঝাড়গ্রাম: অসংগঠিত শ্রমিকদের বার্ধক্যজনিত দুর্দশা, উদৰ্তন বা জীবন সংগ্রাম, শারীরিক অক্ষমতা ও অসমর্থতা, সন্তান প্রতিপালনের দায়দায়িত্ব, রােগনিরাময় এবং আরােগ্যলাভের জন্য স্বাস্থ্য পরিষেবা ইত্যাদি ক্ষেত্রে সক্ষম করে তােলার কথা মাথায় রেখে এবং এই সকল উদ্দেশ্য সাধনের জন্য তাদের আয় সুনিশ্চিত করতে সামাজিক সুরক্ষা যােজনা- ২০১৭ চালু করা হয়েছিল ।এবার এই সামাজিক সুরক্ষা যােজনা আরো সহজে মানুষের কাছে পৌছে দেবার জন্য একটি পোর্টাল চালু করা হল।পোর্টালটিতে প্রথম একজন শ্রমিকের নাম নতিভুক্ত করে সুভ সুচনা করে ঝাড়গ্রামের বিধায়ক ড: সুকুমার হাঁসদা।কিছু শ্রমিকের হাতে প্রকল্পের পেণশন ও এই প্রকল্পের আওতায যারা মারা গেছেন তাদের পরিবারের হাতে আর্থিক সহাযতা তুলে দেওয়া হয়।মঙ্গলবার জেলা শাসষেক কনফারেন্স হলে সামাজিক সুরক্ষা যােজনা- ২০১৭ এর পোর্টালটির সুভ সুচনা করা হয়৷ এদিনের এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, ঝাড়গ্রামের বিধায়ক ড: সুকুমার হাঁসদা, ঝাড়গ্রাম পুরসভার চেয়ারম্যান দূর্গেশ মল্লদেব, জেলা পরিষদের সভাধিপতি সময় মান্ডী, সহকারী শ্রম কমিশনার রবীন চক্রবর্তী-সহ শ্রম দফতরের একাধিক আধিকারিক।

রাজ্যে ৪৬টি অসংগঠিত ক্ষেত্রে কর্মরত শ্রমিকরা এর সুবিধা পাবেন৷ এ ছাড়া ১৫টি ক্ষেত্রে স্বনির্ভর পেশার সঙ্গে যুক্ত মানুষও এই সুবিধা পাবেন৷ তবে শ্রমিকের মাসিক আয় ৬৫০০ টাকার বেশি হলে চলবে না৷ তাদের বয়স ১৮ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে হতে হবে৷ এই যোজনা থেকে কী কী পাবেন অসংগঠিত শ্রমিক ? এই প্রকল্পে মিলবে প্রভিডেন্ট ফান্ডের সুবিধা৷ এ জন্য শ্রমিকদের ৬০ বছর বয়স পর্যন্ত বা আমৃত্যু মাসে ২৫ টাকা জমা দিতে হবে৷ এ ছাড়াও শ্রমিক ও তার পরিবারের চিকিত্সার সুবিধা৷ কর্মরত অবস্থা মারা গেলে বা প্রতিবন্ধী হয়ে গেলে পরিবারকে ২ লক্ষ টাকা পর্যন্ত আর্থিক সাহায্য দেওয়া হবে৷ ছেলেমেয়েদের পড়াশোনার জন্য বছরে আর্থিক সাহায্য দেওয়া হবে৷

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট