চিকিৎসায় গাফিলতির জেরে এক যুবকের মৃত্যুর অভিযোগ, স্বাস্থ্যকেন্দ্রে বিক্ষোভ


শুক্রবার,০৭/০৯/২০১৮
225

সুমন করাতি---

হুগলি: চিকিৎসায় গাফিলতির জেরে এক যুবকের মৃত্যুর অভিযোগ উঠল। মৃতের নাম তাপস বিশ্বাস(৩৫)। ঘটনাটি হুগলির মগরা প্রাথমিক স্বাস্বাস্থ্য কেন্দ্রর। এর জেরে ওই স্বাস্থ্যকেন্দ্রে বিক্ষোভ দেখান মৃতের পরিজনরা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ঘটনাস্থানে পৌঁছায় মগরা থানার পুলিশ।

হুগলির পোলবার আকনার বাসিন্দা ছিলেন তাপস বিশ্বাস। তিনি ব্যবসা করতেন। বুধবার শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যার জন্য় তাঁকে মগরা প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভরতি করা হয়। গতকাল অবস্থার উন্নতি না হওয়ায় তাঁকে স্থানান্তরিত করার কথা বলেন তাঁর পরিজনরা। অভিযোগ, সেই কথায় কর্ণপাত করেননি কেউ। উলটে তাঁদের বলা হয়, অনেক রোগীরই এমন সমস্যা হচ্ছে। তাপসবাবুর বিষয়টি বিশেষ গুরুত্ব দেওয়ার প্রয়োজন নেই। উনি তাড়াতাড়ি সেরে উঠবেন।
কিন্তু, গতকাল সকালে তাঁর অবস্থার আরও অবনতি হয়। সেই সময় দায়িত্বে থাকা চিকিৎসক ECG করার পরামর্শ দেন। রিপোর্ট হাতে পাওয়ার আগেই গতরাতে মারা যান তাপসবাবু।

এরপরই চিকিৎসায় গাফিলতির অভিযোগে স্বাস্থ্যকেন্দ্রে চিকিৎসকদের ঘিরে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন তাপসবাবুর পরিজনরা। তাপসবাবুকে ভরতি করার পর থেকে দায়িত্বে থাকা চিকিৎসকদের শাস্তির দাবিও জানান। তাপসবাবুর পরিবারের তরফে চিকিৎসকদের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ জানানো হবে বলেও জানা গেছে।তাপসবাবুর দাদা মানস বিশ্বাস বলেন, “বুধবার ভাইকে ভরতি করেছিলাম। গতকাল বিকেলে ECG ও রক্ত পরীক্ষা করতে দিল। কালও বলেছি, আমার ভাইয়ের কোনও উন্নতি হচ্ছে না, খুব শ্বাসকষ্ট হচ্ছে। আপনারা ওকে চুঁচুড়ায় ট্রান্সফার করে দিন। কিন্তু, আমার কথায় কেউ পাত্তা দিল না। উলটে আমাকে ধমক দিয়ে চুপ করিয়ে দিল। ভরতি করার পর প্রথমে যিনি দেখছিলেন তাঁর সঙ্গে কোনওভাবে এখন যোগাযোগ করা যাচ্ছে না। ওনাদের গাফিলতিতেই একটা মানুষ মারা গেল। আমরা চাই আমার ভাই যাদের জন্য মারা গেল, তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিক প্রশাসন।”

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট