আমতায় অডিটরিয়াম সংস্কারের জন্য ৪ কোটি টাকা বরাদ্দ, বিতর্ক বেঁধেছে তৃণমূলে


শুক্রবার,২১/১২/২০১৮
302

আক্তারুল খাঁন---

হাওড়া: প্রায় চার কোটি টাকা খরচ করে হাওড়া জেলার আমতা অডিটরিয়ামটি সংস্কারের পরিকল্পনা হয়েছে। আমতা ব্লক প্রশাসনের তত্ত্বাবধানে কাজটি হওয়ার কথা। সংস্কার কাজের জন্য টাকা দেবে রাজ্য সরকার। ব্লক প্রশাসন সূত্রে জানা যায় শীঘ্রই কাজ শুরু হবে। কিন্তু এই অডিটোরিয়ামের সংস্কার কাজ নিয়ে তৃণমূলের মধ্যে বিক্ষুব্ধরা বিভিন্ন কথাবার্তা এবং প্রশ্ন তুলতে শুরু করেছেন। তাঁরা বলছেন, কয়েকটি নীল সাদা বিল্ডিং কখনোই উন্নয়নের মুখ হতে পারে না। তাঁরা বলছেন, কয়েকটি নীল সাদা ঝাঁ-চকচকে বিল্ডিং করে কিছু ঠিকাদারের পকেটের উন্নয়ন উলুবেরিয়া উত্তরে মাননীয় বিধায়ক করেছেন বটে, কিন্তু তিনি তাঁর বিধানসভা এলাকায় বসবাসকারী শ্রমিক-কৃষক, দিন-আনা দিন-খাওয়া মানুষের জন্য কিছু করেছেন বলে এই বিধানসভা এলাকার বসবাসকারী তৃণমূলের সমর্থক শ্রমজীবি কৃষিজীবি মানুষেরা মনে করতে পারছেন না।

আমতা প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্র বিধায়কের হাত ধরে গ্রামীণ হাসপাতালে উন্নতি হয়েছে ঠিকই কিন্তু পরিষেবার কি কিছু উন্নতি হয়েছে?আমতা গ্রামীণ হাসপাতালে রোগী গেলেই তাকে অন্যত্র ‘রেফার’ করা হয়। অথচ মাননীয় বিধায়ক মহাশয় তো যে কোনো সভায় ঢাক পেটান এই বলে যে, আমতা হাসপাতাল কি তিনি পশ্চিমবঙ্গের সেরা হাসপাতাল করবেন। কিন্তু কবে? এদিকে উলুবেরিয়া উত্তর বিধানসভা এলাকার আরো যে প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্র গুলি আছে, সেসব স্বাস্থ্য কেন্দ্রের যে কি বেহাল অবস্থা হয়েছে বিধায়ক মহাশয় তাঁর কী খবর রাখেন?

বিক্ষুব্ধ তৃণমূলীরা অত্যন্ত আক্রমণাত্মক সুরে বলছেন যে, বিধায়ক মহাশয় এখন আবার ঘটা করে বলে বেড়াচ্ছেন,আমতা অডিটরিয়ামটি ভেঙ্গে তিনি আধুনিক রূপ দেবেন ৪ কোটি টাকা খরচ করে। বিধায়ক এর উদ্দেশ্যে বিক্ষুব্ধদের আক্রমনাত্মক প্রশ্ন হল, বিধায়ক বাবু আপনার এলাকার গরিব গুর্বো মানুষগুলো কি ওই অডিটোরিয়ামে গিয়ে জল খাবে? এই গরিব মানুষ বলে যে নুন আনতে পান্তা ফুরানোর মত অবস্থা। ঐ ৪ কোটি টাকা গরিব মানুষগুলোর জন্য খরচ করলে তো এরা অত্যন্ত একটু ভাল থাকার সুযোগ পেত।

বিক্ষুব্ধ তৃণমূলীরা জোরালোভাবে বিধায়ক কে উদ্দেশ্য করে বলছেন যাঁদের মধ্যে অমতা প্রপারের কেউ নেই, যে প্রশ্নটি অত্যন্ত জোরালোভাবে তুলেছেন সেটি হল “আপনি তো উলুবেড়িয়া উত্তরের ১৪ টি গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার বিধায়ক, নিশ্চয়ই আমতার নন।তা আপনি এবং আপনার ভাইয়েরা প্রপার আমতায় যে সময় অতিবাহিত করেন তা বাকি পঞ্চায়েত গুলোতে দেন না কেন?”

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট