কফি হোক বা চা এই শীতের সন্ধ্যায় জমিয়ে উষ্ণ পানীয়ে চুমুক দিতে কে না ভালোবাসে?


শনিবার,২২/১২/২০১৮
2437

শুভ বিশ্বাস---

শহরে শীতের আগমন, শীতপ্রেমী মানুষদের কাছে সেরা সময় এটি। কিন্তু এই শীতের সন্ধ্যায় চা না হলে একটুও জমে না। আড্ডা হোক বা গল্পের ঠেক চা কিন্তু চাই। এই শীতের সন্ধ্যায় চায়ের কাপে চুমুক দিতে ভালোবাসে আট থেকে আশি। শীতের সকালে চায়ের কাপ মুখ না দিয়ে বাড়ি থেকে অফিসে বের হয়না অনেকে। এই শীতে একটু উষ্ণ পানীয় না হলে কি আর চলে। পাড়ার চায়ের দোকানে এখন শীতের সকালে উপচে পরছে ভিড়।

শীতের কাঁপুনি নিয়ে জড়সড় হাতে একটু চায়ে চুমুক দিয়ে স্বস্তি মেলে। তবে শুধু স্বস্তি নয় চায়ের অনেক গুনাগুন রয়েছে যেমন চায়ে রয়েছে অনেক বেশি অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট, যা হৃদ্রোগের ঝুঁকি কমায়। শুধু তা-ই নয়, চা রক্ত জমাট বাঁধাও দূর করে। আর লৌহ শোষণের মাত্রা কমায় এই চা। এতে পটাশিয়াম, জিংক তো আছেই।রং চায়ের সঙ্গে আদা মিশিয়ে পান করলে নানা উপকার পাওয়া যায়। এই চা বিতৃষ্ণা ও বমির ভাব দূর করে, সকালে ঘুম থেকে উঠে চায়ের কাপে চুমুক দিয়েই দিনটা শুরু।

এক কাপ চা হাতে পেলেই সারাদিনের এনার্জি পেয়ে যাবেন ৷.তাই নানান স্বাদের চা সংগ্রহ করতে পারেন এই শীতে। অফিসে কাজের চাপে ক্লান্তি দূর করতে চায়ের জুড়ি নেই। এছাড়া আড্ডা হোক বা অফিস মিটিং চায়ের জন্য রয়েছে এক নিদিষ্ট জায়গা। তাই এবার শীতে আপনিও চায়ের স্বাদ নিতে অবশ্যই পাড়ি জমাতে পারেন শহর কলকাতার সেরা চায়ের দোকানগুলিতে। তবে চা নানা প্রকারের আছে সবচেয়ে সবুজ চা অর্থাৎ গ্রিনটি গুনাগুন সবথেকে বেশি। এই চা পান করলে আপনি থাকবেন সতেজ। চায়ের কাপে চুমুক দিয়ে শুরু হোক শীতের সকাল।

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট