শহরে কংগ্রেসের মহামিছিল


বুধবার,০৬/০২/২০১৯
331

বাংলা এক্সপ্রেস---

চিট ফান্ড কেলেঙ্কারির যথাযথ তদন্ত দ্রুত শেষ করে বিচারের ব্যবস্থা এবং দোষীদের শাস্তির দাবিতে বুধবার পশ্চিমবঙ্গ প্রদেশ কংগ্রেসের ডাকে সুবোধ মল্লিক স্কোয়ার থেকে ভিক্টোরিয়া হাউস পর্যন্ত মহামিছিল সংগঠিত হয়। এই মিছিলে যোগ দিয়ে সারদা – নারদা সহ সমস্ত আর্থিক কেলেঙ্কারির বিরুদ্ধে প্রতিবাদে গর্জে উঠুন কংগ্রেসের কর্মীসমর্থকরা। নেতৃত্ব তেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্র।

কেন্দ্রীয় এজেন্সি গুলিকে রাজনৈতিক স্বার্থে ব্যাবহার করছে কেন্দ্রের মোদি সরকার। এই অভিযোগকে সামনে রেখে ধর্মতলার মেট্রো চ্যানেলে অবস্থানে বসেছিলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর এই আন্দোলনকে সমর্থন জানিয়েছিলেন দেশের বিজেপি বিরোধী তাবড় নেতারা। মমতাকে ফোন করে সমর্থন করেছিলেন কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সভাপতি রাহুল গান্ধীও। আর সেই কংগ্রেসেরই পশ্চিমবঙ্গ শাখার নেতারা উল্টো পথে গিয়ে মমতার অবস্থান আন্দোলন নিয়ে সোচ্চার হলেন একেবারে রাস্তায় নেমে। মুখ্যমন্ত্রীর অবস্থান প্রত্যাহারের পর দিনই সেই একই জায়গায় সভা করল প্রদেশ কংগ্রেস।

মমতার আন্দোলনের নৈতিকতা নিয়ে এই সভা থেকে প্রশ্ন তুললেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্র। কলকাতার পুলিশ কমিশনারের বাড়িতে মুখ্যমন্ত্রীর ছুটে যাওয়া নিয়েও আক্রমন করেন তিনি। সোমেন মিত্রের সাফাই, রাহুল গান্ধী কখনই সিবিআই ইস্যুতে মমতার অবস্থানকে সমর্থন জানাননি। দেশে বিজেপি বিরোধী আন্দোলনের প্রতি সমর্থন রয়েছে রাহুল গান্ধীর। চিট ফান্ড কেলেঙ্কারির যথাযথ তদন্ত দ্রুত শেষ করে বিচারের ব্যবস্থা এবং দোষীদের শাস্তির দাবিতে বুধবার পশ্চিমবঙ্গ প্রদেশ কংগ্রেসের ডাকে সুবোধ মল্লিক স্কোয়ার থেকে ধর্মতলা পর্যন্ত মহামিছিল সংগঠিত হয়।

এই মিছিলে যোগ দিয়ে সারদা – নারদা সহ সমস্ত আর্থিক কেলেঙ্কারির বিরুদ্ধে প্রতিবাদে গর্জে উঠুন কংগ্রেসের কর্মীসমর্থকরা। নেতৃত্ব তেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্র। মিছিল শেষে মেট্রো চ্যানেলে সংক্ষিপ্ত সভায় রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর অবস্থান আন্দোলন নিয়ে সোচ্চার হন প্রদেশ কংগ্রেসের ছোট বড় সব মাপের নেতারাই।

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

জানা অজানা

সাহিত্য / কবিতা

সম্পাদকীয়


ফেসবুক আপডেট