চোখের জল নয়, প্রত্যাঘাতের দাবি জীবিত সেনা পরিবারের


বুধবার,২০/০২/২০১৯
238

বাংলা এক্সপ্রেস,ওয়েব ডেস্কঃভারতীয় সেনা জওয়ানদের আর মৃত্যু নয়। মোমবাতি মিছিল করে কি হবে, মৃত্যুর বদলা চাই। সরকারের কাছে চোখের জলে এই দাবি জানাচ্ছেন বসিরহাটের স্বরূপনগরের বিশ্বাস পরিবার। ১৪ ফেব্রুয়ারির পুলওয়ামার ৫৪ নম্বর ব্যাটেলিয়নের সেনা ট্রাকের উপর জঙ্গি হামলা ওই ব্যাটেলিয়ানের জীবিত সেনা সোমেন বিশ্বাস জোয়ান । সোমেন বিশ্বাস গত পাঁচ বছর কাশ্মীরের পুলওয়ামা কর্মরত সেদিনকে যে আড়াই হাজার সেনা নিয়ে যে ট্রাক যাচ্ছিল ৭১ টা যে ট্রাক হামলা হয়েছিল স্বরূপনগরের বাঙালি জওয়ান সোমেন বিশ্বাস সামনের সেনা ট্রাকে ছিল ,কোন রকম ভাবে প্রাণে বাঁচেন । বাবা মায়ের একমাত্র সন্তান । সন্তানসম্ভবা স্ত্রী প্রিয়াঙ্কা বিশ্বাস গত এক মাস আগে তাকে রেখে আবার চাকরিতে যোগ দেয় । বাবা অনন্ত বিশ্বাস বছর পঁচিশের আগে মারা গিয়েছেন ,মা যমুনা বিশ্বাস। একমাত্র হতদরিদ্র পরিবারের থেকে সৌমেন কে পড়াশোনা শিখিয়ে সেনাবাহিনীতে যোগ দিয়েছে ।ছোটবেলা থেকে বলতেন দেশের জন্য কিছু করা ,তাই আজ সেনাবাহিনীতে কর্মরত। স্ত্রী প্রিয়াঙ্কা মা যমুনা জীবিত জনের পরিবারের একটাই দাবি যে কত মা তার ছেলেকে হারাবে, কত চোখের জল পড়বে , স্ত্রী স্বামীকে হারাবে, ভাই দাদা কে দাদা ভাই কে হারাবে। আর কত বদলা নেয়া দিন এসেছে একটা মোবাইল কল আসতেই আতঙ্কের ছাপ দেখা দিয়েছে জোয়ানের পরিবারের। দিন রাতের ঘুম কেড়েছে ওদের তাও দাবি উঠেছে মৃত্যুর বদলে প্রত্যাঘাত বদলা দেশের জন্য কিছু করুক। মাঝে মাঝে কাশ্মীরের ঘটনা দেখে শিউরে উঠছে সৌমেন এর পরিবার। চোখে জল আর মনে সাহস জেদ সবমিলিয়ে পাল্টা প্রত্যাঘাত আশা করছে বাঙালি জীবিত জোয়ানের পরিবারের লোক ।পরিবারের একমাত্র ছেলে তার ওপর নির্ভরশীল বাবা হারানো মা আর সন্তান সম্ভাবনা স্ত্রী
। সরকারের কাছে সেনা জওয়ানদের নিরাপত্তার দাবি জানাচ্ছেন তিনি। তার দাবি এভাবে চলতে থাকলে আর কেউ এই বাহিনীতে ঘটনার কয়েকদিন পর তোড়জোড় হয়। তারপর সবাই ভুলে যায়। বাড়ির ছেলেকে হারিয়ে নিঃস্ব হয়ে যায় পরিবার। সেই ভার কখনও ভোলার নয়।

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট