বধূকে কটুক্তি, স্বামী প্রতিবাদ করে আক্রান্ত


বুধবার,১০/০৭/২০১৯
272

নিজস্ব প্রতিনিধি, বারুইপুর : প্রায়ই প্রতিবেশীর বাড়িতে থাকা এক যুবক কটূক্তি করত এক বধূকে। স্বামীকে তা জানাতেন ওই বধূ। বিষয়টিতে পাত্তা দিতে চান নি স্বামী। কিন্তু এদিন ওই যুবককে হাতের কাছে পেয়ে বধূর স্বামী তার কাছে জানতে চান কেন সে তার স্ত্রীকে কটূক্তি করে। প্রতিবাদ জানায় তার এই কাজের। আর তাতেই ফল হয় উল্টো। ওই যুবক বচসায় জড়িয়ে পড়ে বধূর স্বামীর সঙ্গে।

একে ওপরকে দেখা নেওয়ার হুমকি দেয়। তারপরেই ওই যুবক বধূর স্বামীর মাথায় পিছন থেকে লোহার রড দিয়ে মারে। মাটিতে লুটিয়ে পড়ে সে। আর ঘটনার পরই গা ঢাকা দেয় ওই যুবক। বুধবার সকালে এই ঘটনা ঘটে সোনারপুর থানার চৌহাটি মুসলিমপাড়াতে।আক্রান্ত স্বামীর নাম জাকির হোসেন কলাইকার। পেশায় জোগাড়ের কাজ করেন জাকির। তার মাথায় বেশ কয়েকটি সেলাই হয়েছে। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে,এদিন সকালে এই ঘটনা ঘটে কারবালা মুসলিম পাড়াতে। জাকিরের বউকে প্রায়ই কটূক্তি করে পাশের বাড়িতে থাকা যুবক রাকিব।

তা নিয়ে বেশ বিব্রত বোধ করে ওই বধূ। প্রথমে রাকিবকে মানা করে ওই বধূ। কিন্তু রাকিব তাতে কর্ণপাত করেনি। এরপর বধূ বিষয়টি তাঁর স্বামী জাকিরকে জানান। স্বামীও প্রথমে কিছু বলতে চায় নি। কিন্তু রাকিব দিনের পর দিন ওই কটূক্তি বাড়াতে থাকে। তাতেই এদিন সকালে জাকরি হোসেন রাকিবের কাছে তার এই কাজের প্রতিবাদ জানায়। তাই নিয়ে দুজনের বচসা বাধে। সেই সময়ই আচমকা পিছন থেকে লোহার রড নিয়ে এসে রাকিবের মাথায় মেরে সেখান থেকে পালায় অভিযুক্ত রাকিব বলে অভিযোগ।জাকিরের মাথা ফেটে রক্ত বের হতে থাকে। তাকে নিয়ে পরিবারের লোকজন সুভাষগ্রাম হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে তার চিকিৎসা হয়। তারপর সোনারপুর থানায় এসে অভিযোগ জানান জাকির হোসেন ও তার পরিবারের লোকজন।পুলিশ অভিযোগের ভিত্তিতে ঘটনার তদন্তে নেমেছে। জানা গেছে, অভিযুক্তের বাড়ি আসলে বিষ্ণুপুর থানার নেপালগঞ্জে। কাজের সুবাদে সেখান থেকে এখানে এসে থাকছিল রাকিব।

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট