রাম মন্দির নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের রায়ের প্রেক্ষিতে মুখ্যমন্ত্রী কেন কোনো কথা বলছেন না: দিলীপ ঘোষ


রবিবার,১৭/১১/২০১৯
880

সাংবাদিক সম্মেলনে রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে সরব হলেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। পার্শ্ব শিক্ষকদের ধরনা থেকে শুরু করে রাজ্যপালের হেলিকপ্টার না পাওয়া সব বিষয়েই সরব তিনি। শনিবার দিলীপ ঘোষ সাংবাদিক সম্মেলনে বলেন, পার্শ্ব শিক্ষকরা ধর্না দিচ্ছেন। এই সরকার কিছু পরীক্ষা ঠিক করে নিতে পারে না।

গভর্নরকে নিয়ে খুব বিতর্ক, বাংলার রাজনীতিতে নতুন যোগ। গভর্নরের কাজকর্ম এম সরকারের পছন্দ নয়। হেলিকপ্টার ছেয়েছিলেন। মুখ্যমন্ত্রী পান। উনি পান না। রাজ্যপালকে আটকানোর জন্য এইসব করছে সরকার। কারণ তিনি গেলে অপ্রিয়কর জিনিস সামনে আসবে।
দিলীপ ঘোষের এদিন বলেন, মুখ্যমন্ত্রী সব বিষয়ে আগ বাড়িয়ে বলেন কিন্তু রাম মন্দির নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের রায় নিয়ে তার কোনো মন্তব্য নেই। সৎ সাহস নেই মুখ্যমন্ত্রীর এই বিষয়ে কিছু বলার।

বিজেপির লোকরা ত্রান পাচ্ছে না। যদি কেউ বিজেপি করে, তার বাড়ির উপর পড়া গাছ কাটা হচ্ছে না। বাবুলদা ও দেবশ্রী চৌধুরীদের ঢুকতে দেওয়া হল না। কালো পতাকা দেখানোর কি আছে? সেখানে ঢুকতেই দেওয়া হল না। খুব নিম্নমানের রাজনীতি হচ্ছে। ত্রাণ নিয়ে যা হচ্ছে , সেটাই পরিষ্কার। মুখ্যমন্ত্রী সকলের নন।

সরকারি হিসাবে দেখছি, বাড়ি ভাঙা নিয়ে উনি যা হিসাব দিচ্ছেন, তা বিভ্রান্তকর। কি করে ৫ লক্ষ বাড়ি ভেঙে গেল বুঝলাম না। সব মিলিয়ে দুই ২৪ পরগনায় ৩ লক্ষ কাচা বাড়ি নেই।

এই বাড়ি নির্মাণ থেকে অনেক কাটমানি আসবে। এত হিসাব দিয়ে টাকা চাওয়া হবে। তার তো অর্ধেক বাড়ি নেই। তাহলে কিভাবে সেই বাড়ি নির্মাণ করে আবার টাকা তোলা যায়,সেটাই ভাবনা। তুফান কে কেন্দ্র করে ইলেকশন ফান্ড তৈরি হচ্ছে। একটা বিপুল পরিমাণে অর্থ আসবে যেটা ভোটের সময় ব্যাবহার হবে। যেখানে ক্ষতি hoyeche, সত্যি করে সার্ভে করা হোক, এবং যারা ক্ষতিগ্রস্থ তারা যেন সত্যি ক্ষতিপূরণ পায়, সেটা দেখা হোক।

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

জানা অজানা

সাহিত্য / কবিতা

সম্পাদকীয়


ফেসবুক আপডেট