দমদম জেলে ধুন্ধুমার কাণ্ড, জেল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আসামিদের তুলকালাম


রবিবার,২২/০৩/২০২০
355

করোনাভাইরাসের মরণ কামড়ের জেরে সৃষ্ট পরিস্থিতিতে তীব্র আতঙ্কের মধ্যেই ধুন্ধুমার দমদম কেন্দ্রীয় সংশোধনাগারে। ইট বৃষ্টি, অগ্নি সংযোগের অভিযোগ। সৌজন্যে করোনাভাইরাসের জেরে আদালত বন্ধ থাকা এবং বাড়ির ‌লোকেদের সঙ্গে বন্দিদের দেখা করতে না দেওয়া। বিশাল পুলিশ ঘটনাস্থে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণের থাবা। আর তাতে এক প্রকার অচল গোটা বিশ্ব। জমায়েত থেকে ভাইরাস আরও ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কায় ভারতেও বন্ধ হয়েছে জরুরী পরিষেবা ব্যতীত অন্য সমস্ত পরিষেবা। রবিবার দেশ জুড়ে ১৪ ঘন্টার জনতা কারফিউর ঘোষনা করেছেন প্রধানমন্ত্রী। এই পরিস্থিতিতে বন্ধ সমস্ত কিছুই। রাজ্যের আদালতগুলিকে আগেই বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। আপাতত আগামী ৩১শে মার্চ পর্যন্ত বন্ধ রাজ্যের সমস্ত আদালত। ফলে জামিন মঞ্জুর হতে পারে বা জামিন মঞ্জুরের অপেক্ষায় থাকা বন্দিরা জামিন পাননি। আর তাতেই ক্ষীপ্ত হয়ে উঠল দমদম কেন্দ্রীয় সংশোধনাগারে থাকা বন্দিরা। ক্ষীপ্ত হয়ে শনিবার তারা চড়াও হয় খোদ সংশোধনাগারের কর্মীদের উপর। সংশোধনাগারের ভিতরে থাকা বন্দিদের সঙ্গে খন্ড যুদ্ধ বেধে যায় বন্দিদের। এর জেরে ধুন্ধুমার কাণ্ড ঘটল দমদম কেন্দ্রীয় সংশোধনাগরের ভিতরে। সংশোধনাগারের ভিতরে ইট বৃষ্টি চলে। অগ্নিসংযোগেরও অভিযোগ উঠেছে। বন্দিদের অভিযোগ তাদের বাড়ির লোকেদের সঙ্গে দেখা করতে দেওয়া হচ্ছে না। ঘটনার খবর পেয়ে দমদম কেন্দ্রীয় সংশোধনাগারে পৌঁছান রাজ্যের মন্ত্রী সুজিত বসু।

খবর পেয়ে সঙ্গে সঙ্গে দমদম থানার বিশাল পুলিশবাহিনী ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। অগ্নিসংযোগের খবর পেয়ে দমকলের বেশ কয়েকটি ইঞ্জিন ঘটনাস্থলে আসে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে বেশ কয়েক রাউন্ড গুলি চালায় ও কাঁদানো গ্যাস ছোড়া হয় পুলিশের পক্ষ থেকে। ঘটনায় ব্যাপক উত্তেজনা ছড়ায় দমদম কেন্দ্রীয় সংশোধনাগার ও সংলগ্ন এলাকায়।

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

জানা অজানা

সাহিত্য / কবিতা

সম্পাদকীয়


ফেসবুক আপডেট