মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশ মতো শুরু হল ফ্রিতে রেশন বিতরণ


বৃহস্পতিবার,০২/০৪/২০২০
859

করোনা প্রতিহত করতে দেশজুড়ে শুরু হয়েছে লকডাউন। এই লকডাউনের জেরে সাধারণ মানুষের নাভিশ্বাস অবস্থা। বন্ধ রুটি-রুজি। সাধারণ মানুষের ঘরে খাদ্যের অভাব। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় ঘোষণা করেছিলেন এই পরিস্থিতি মোকাবিলায় রাজ্যের মানুষকে ফ্রিতে রেশন দেওয়া হবে। সেই নির্দেশ মতো বুধবার থেকে শুরু হল ফ্রিতে রেশন দেওয়া। সাধারণ মানুষ মুখ্যমন্ত্রীর এই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন।
মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষণা মতো আজ থেকে রেশন দোকান গুলিতে ফ্রীতে চাল, গম, ময়দা দেওয়া শুরু হল।ভোর থেকেই রেশন দোকানের সামনে লম্বা লাইন দেখা গিয়েছে। রেশন নিতে এসে যে দূরত্ব বজায় রাখার কথা সেটা দেখা গেল না। পরে পুলিশ এসে নিয়ন্ত্রণ করে।

নিউটাউনের ঘুনি মাঝের পাড়ার রেশন দোকানের এক কর্মচারী দেবদুলাল রায় জানান, যে সমস্ত কার্ড হোল্ডার ডিজিটাল কার্ড পেয়েছেন তারা পাবেন। পাঁচ প্রকারের ডিজিটাল কার্ড আছে। ১৩ টাকা কেজি আর কে সোয়াইফ টু কার্ডে। এছাড়া ৪ ক্যাটাগরি এ ওয়াই, এস পি এইচ এইচ, পি এইচ এইচ, আর কে সোয়াইফ ওয়ান। এই চারটি ক্যাটাগরি সম্পূর্ণ ফ্রী। প্রত্যেক সপ্তাহে যে মালটা দেওয়া হয়। সেটা এক মাসের বরাদ্দ কৃত সেটা একবারে সম্পূর্ণ ফ্রীতে দেওয়া হবে। আর কে সোয়াইফ টু এর সাদা কার্ডে ১৩ টাকা কেজি চাল ও ৯ টাকা কেজি গম যেটা প্রতি সপ্তাহে ৫০০ গ্রাম করে দেওয়া হত সেটা ১ কেজি মাসে বরাদ্দ কৃত হয়েছে। যেটা পয়সা দিয়ে কিনতে হবে। এ ওয়াই কার্ডে মাসে ১৫ কেজি চাল, ২০ কেজি আটা ফ্রীতে দেওয়া হচ্ছে। এস পি এইচ এইচ কার্ডে মাসে ২ কেজি চাল ও ৩ কেজি আটা ফ্রীতে দেওয়া হচ্ছে। আর কে সোয়াইফ ওয়ানে ২ কেজি চাল ও ৩ কেজি গম সম্পূর্ণ ফ্রীতে দেওয়া হচ্ছে।

ভোর থেকে রেশন দোকানে লাইন দিয়ে যারা ফ্রীতে রেশন পেয়েছেন তারা ভীষণ খুশি।

তবে যারা ভোর থেকে ফ্রীতে রেশনের মাল পাবেন বলে লাইনে দাঁড়িয়েছিলেন তারা মাল না পাওয়ায় বিভ্রান্তি তৈরি হয়। মূলত আর কে সোয়াইফ টু কার্ডের হোল্ডাররা ফ্রী মাল না পাওয়ায় বিভ্রান্তি সৃষ্টি হয়। তারাও ফ্রীতে মাল পাবেন বলে ভোর থেকে লাইনে দাঁড়ান।

রেশন না পেয়ে শান্তি মন্ডল জানান,ফ্রীতে মাল দেবে শুনেই তো ভোর থেকে লাইনে দাঁড়িয়ে আছি। এখন শুনছিI কুপন ছাড়া মাল দেবে না। ছোট কার্ড ছাড়া ফ্রীতে মাল দেবে না, বড় কার্ডে পঞ্চায়েত থেকে কুপন আনতে হবে। টাকা দিয়ে মাল কিনতে হবে। সারা বছর তো টাকা দিয়ে মাল কিনছি। এখন তিনমাস বাচ্চা কাচ্চা নিয়ে ঘরে বসে কি খাবো। দু কেজি চাল দিলে একদিনে পাঁচ জনের সংসার হয়ে যাবে। তারপর কি খাবো আমরা।
[7:28 PM, 4/1/2020] Bikash Ghosh BE: বুধবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানান করোনা আক্রান্ত হয়ে এ রাজ্যে এখন পর্যন্ত মোট তিনজনের (৩) মৃত্যু হয়েছে। এদিন তিনি বলেন, বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে রাজ্যে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা বিভিন্ন দেখানো হচ্ছে রাজ্যের কাছ থেকে কোন তথ্য না নিয়েই।এদিন নবান্নে সাংবাদিক সম্মেলনে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “এখন পর্যন্ত এ রাজ্যে পজেটিভ হয়েছিল ৩৭, তাঁদের মধ্যে তিনজন সুস্থ হয়ে গিয়েছেন। তিনজন মারা গিয়েছেন, তার মধ্যে একজন নিউমনিয়া , মারা গিয়েছে” এমন তথ্যই সাংবাদিক বৈঠকে তুলে ধরেন।

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট