লকডাউন চলাকালীন অ্যামাজনের ডেলিভারি সম্পর্কিত নানা ভ্রান্ত ধারণা; তার সঠিক ব্যখ্যা এবং মিথ্যাকে তুলে ধরা


বুধবার,২২/০৪/২০২০
4229

সারা দেশের মানুষ যখন ভাইরাস সংক্রমন প্রতিরোধে, সোশ্যাল ডিস্ট্যান্স বা সামাজিক ব্যবধান মেনে চলছেন, নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রীর জন্য সকলেই ই-কমার্স সংস্থাগুলির হোম ডেলিভারির উপর বেশীরভাগ ক্ষেত্রেই নির্ভরশীল হয়ে আছেন। নানা শহরে  ধীরে ধীরে যখন পরিষেবা শুরু হচ্ছে, তখন নাগরিকরা যাতে নিজেদের বাড়িতে সুরক্ষিত থাকেন তা নিশ্চিত করতে ফুলফিলম্যান্ট নেটওয়ার্কের অ্যাসোসিয়েটরা এগিয়ে এসেছেন। এই অভূতপূর্ব সময়ে, অ্যামাজন তাদের সকল কাজের সাইটে স্বাস্থ্য ও পরিচ্ছন্নতা রক্ষায় একগুচ্ছ পদক্ষেপ নিয়েছে যাতে অ্যাসোসিয়েটরা সুস্থ ও সুরক্ষিতভাবে গ্রাহকদের কাছে পণ্য পৌঁছে
দিতে পারেন। যদিও, আপনার অ্যামাজন ডেলিভারি সম্পর্কে নানা ভুল ধারণা চালু রয়েছে। এখানে এরকম কয়েকটি ধারণার কথা উল্লেখ করা হয়েছে

1.ধারণা: “লকডাউনের সময় অনলাইন ডেলিভারি সেফ নয়”
ব্যখ্যা: গ্রাহকরা অনলাইনে অর্ডার করা সামগ্রী অ্যামাজন থেকে কি ভাবে পাবেন সেক্ষেত্রে নানা ধরনের পরিবর্তন করা হয়েছে। গ্রাহক ও ডেলিভারি অ্যাসোসিয়েটদের স্বাস্থ্য সুরক্ষার কথা মাথায় রেখেই এই পদক্ষেপ। ডেলিভারি অ্যাসোসিয়েটদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে যে তারা যেন রুটের শুরু এবং শেষে, তাদের গাড়ির সেই সব স্থান গুলি পরিষ্কার করেন যেখানে বারবার স্পর্শ করা হয়েছে, এর সঙ্গে ডেলিভারি ডিভাইস ও যেন পরিষ্কার করা হয় । ডেলিভারি
অ্যাসোসিয়েটসরা বারবার তাদের হাত সাবান ও জল দিয়ে অন্তত ২০ সেকেন্ড ধরে পরিষ্কার করছেন অথবা অ্যালকোহল-বেসড স্যানিটাইজার বা ক্লিনিং এজেন্ট ব্যবহার করছেন। এছাড়াও, যদি কোন অ্যামাজন ডেলিভারি অ্যাসোসিয়েট জ্বরে আক্রান্ত হন কিংবা অসুস্থ বোধ করেন সেক্ষেত্রে তাদের বাড়িতে বিশ্রাম করা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। কাজেই আপনার অ্যামাজন ডেলিভারি সম্পূর্ণ সুরক্ষিত!


2.ধারণা: “বাড়ির দরজায় ডেলিভারি অ্যাসোসিয়েটের কাছ থেকে ডেলিভারি নেওয়া ঝুঁকির ”
ব্যাখা:. অ্যামাজন সকল গ্রাহক এবং অ্যাসোসিয়েটের সুরক্ষা এবং সুস্বাস্থ্যের বিষয়ে সব সময় খেয়াল রাখে আর তাই অতিরিক্ত সুরক্ষার মাপকাঠি হিসাবে তাদের ডেলিভারি পদ্ধতিতে কিছু পরিবর্তন এনেছে। আঞ্চলিক নিয়ম কানুন এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার নির্দেশের প্রেক্ষিতে, এই নতুন পদ্ধতিতে, ডেলিভারি অ্যাসোসিয়েট আপনার বাড়ির দরজায় অর্ডার করা সামগ্রী রেখে দেবে এবং ২ মিটার দূরত্বে দাঁড়িয়ে থাকবে। যদি সেখানে যথেষ্ট জায়গা না থাকে,
তাহলে, প্যাকেজ উপযুক্ত জায়গায় রেখে দেওয়া হবে এবং আপনাকে সেরকম নিরাপদ দূরত্ব বিশিষ্ট জায়গা বেছে নিয়ে প্যাকেজ শনাক্ত করতে অনুরোধ জানানো হবে। ডেলিভারি করার ব্যক্তি নিজেও ২ মিটার দূরত্ব বজায় রাখবেন।

3.ধারণা: “ডেলিভারি অ্যাসোসিয়েটরা লকডাউনের সময় উপযুক্ত অনুমতি ছাড়া কাজ করছেন ”
ব্যাখ্যা:. ভারত সরকার , অ্যামাজনের মতো ই-কমার্স সংস্থাকে অত্যাবশ্যক সামগ্রী ডেলিভারির উপযুক্ত অনুমতি প্রদান করেছে, বিশেষত লকডাউনের সময়েও। এর প্রেক্ষিতে, স্থানীয় কর্তৃপক্ষ ডেলিভারি অ্যাসোসিয়েটদের পাস দেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু করেছে যার মাধ্যমে তারা কোন রকম সমস্যা ছাড়াই গ্রাহকদের কাছে তাদের অর্ডার করা সামগ্রী পৌঁছে দিচ্ছেন।

4.ধারণা: “লকডাউনের সময় বাড়ির দরজায় প্রোডাক্ট ফেরত দেওয়া /পালটে নেওয়া যেতে পারে”
সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার নির্দেশ যথাযথভাবে পালন করার স্বার্থে এবং অতিরিক্ত সুরক্ষামূলক ব্যবস্থা হিসাবে, অ্যামাজন বর্তমানে সাময়িকভাবে সেই সব কাজকর্ম বন্ধ রেখেছে যেখানে গ্রাহকের সঙ্গে সরাসরি কথাবার্তা এবং লেনদেনের প্রয়োজন হয়।

5.ধারণা: “অনলাইন ডেলিভারি অ্যাসোসিয়েটরা গাদাগাদি করে অপরিচ্ছন্ন পরিবেশে কাজ করেন”
ব্যাখ্যা: স্থানীয় প্রশাসনের নির্দেশ অনুযায়ী ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (WHO) এর পরামর্শে, অ্যামাজন তাদের সকল কাজের স্থান পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখার প্রক্রিয়া বারেবারে চালিয়ে যাচ্ছে যার মধ্যে উল্লেখযোগ্যভাবে দরজার হ্যান্ডেল, হ্যান্ডরেল, টাচ স্ক্রিন, স্ক্যানার, এবং বারবার ছোঁয়া হয় এমন সকল স্থান নিয়মিতভাবে জীবাণুমুক্ত করার কাজ চলছে। সকল ওয়ার্ক স্টেশন নিয়মিত পরিষ্কার করা হচ্ছে এবং জীবাণুমুক্ত রাখা হচ্ছে। সকল কর্মীকে নিরাপদ দূরত্ব বজায় রেখে কাজ
করতে বলা হয়েছে। প্রতিটি কর্মীকে নিয়মিত তাদের হাত সাবান ও জল দিয়ে অন্তত ২০ সেকেন্ড ধরে ধুয়ে নেওয়ার বিষয়েও সতর্ক ও সচেতন করে অ্যামাজন নিয়মিত নির্দেশ পাঠাচ্ছে।

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

জানা অজানা

সাহিত্য / কবিতা

সম্পাদকীয়


ফেসবুক আপডেট