বাড়তে চলেছে কলকাতা পুরসভা বোর্ডের মেয়াদ


সোমবার,২৭/০৪/২০২০
884

প্রশাসক নয়, কলকাতা পুরবোর্ডেরই  (KMC) মেয়াদ অন্তত ছ’মাস বৃদ্ধির জন্য আইন দপ্তর ও সংবিধান বিশেষজ্ঞদের মতামত জানতে চাইল রাজ্য সরকার। প্রস্তাবটি কার্যকর হলে মেয়র ও মেয়র পারিষদের পাশাপাশি ১৪৪ জন কাউন্সিলরেরই প্রশাসনিক ক্ষমতার মেয়াদও বাড়বে। সমান সুবিধা ভোগ করতে পারবেন তৃণমূল, বাম, কংগ্রেস ও বিজেপির নির্বাচিত বর্তমান কাউন্সিলররাও।

আগামী ৭ মে কলকাতার চলতি পুরবোর্ডের মেয়াদ শেষ হচ্ছে। রাজ্য নির্বাচন কমিশন কলকাতা ও হাওড়ায় গত ১৯ এপ্রিল ভোটগ্রহণের প্রস্তুতি সম্পূর্ণ করেছিল। করোনার জেরে ভোট পিছোতেই কার্যত কলকাতা পুরসভায় সাংবিধানিক ও প্রশাসনিক সংকট হওয়াতেই মেয়াদ বৃদ্ধির ভাবনা। COVID-19 ভাইরাসের সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ায় নির্দিষ্ট সময়ে পুরভোট না হওয়ার জন্যই কলকাতার পুরবোর্ডের মেয়াদ বৃদ্ধির ভাবনার কথা রবিবার স্বীকার করেন পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম।

বিজ্ঞাপন

পুর আইনের নানা ধারা ও উপধারার উল্লেখ করে ফিরহাদ বলেন, “নগরপালিকা আইন চালুর পর রাজ্যের অন্য পুরসভায় প্রশাসক বসা নিয়ে স্পষ্ট নির্দেশ ও আইন আছে।কিন্তু কলকাতা কর্পোরেশনে প্রশাসক বসানো নিয়ে তেমন কোনও সুস্পষ্ট গাইডলাইন পাওয়া যাচ্ছে না। তাই করোনা মোকাবিলার কথা মাথায় রেখে বোর্ডেরই মেয়াদ বৃদ্ধি নিয়ে রাজ্য সরকারের আইন বিভাগের বিশেষজ্ঞদের মতামত জানতে চেয়েছি।”

মূলত, পুরসভায় প্রশাসক বসলে করোনা মোকাবিলায় প্রতিটি ওয়ার্ডে এখন কাউন্সিলরদের নেতৃত্বে যে মাইক্রোপ্ল্যানিং টিম কাজ করছে, তা পুরোপুরি ভেঙে যাবে। পুর-প্রশাসনে ওয়ার্ডভিত্তিক জনপ্রতিনিধির নিয়ন্ত্রণ না থাকলে করোনা ভাইরাসে শহরে মুহূর্তে মহামারির আকার নেওয়ার প্রবল আশঙ্কা থাকছে। বস্তুত এই কারণেই মেয়াদ বৃদ্ধির প্রস্তাব দিয়ে আইনি দিকটি জানতে চেয়েছে রাজ্য সরকারের পুর ও নগরোন্নয়ন দপ্তর।
যদি শেষপর্যন্ত মেয়াদ বৃদ্ধি হয় তবে আগামী ৭ মে রাতের মধ্যেই রাজ্যকে রাজ্যপালের সম্মতি নিয়েই অর্ডিন্যান্স জারি করতে হবে। অতএব তার আগেই গুরুতর সিদ্ধান্ত নিয়ে নিতে হবে।

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট