মেয়রের হাতে এক লক্ষ টাকার চেক তুলে দিলেন ইদ্রিস আলি


বুধবার,০৬/০৫/২০২০
327

মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির ত্রাণ তহবিলে এক লক্ষ টাকার চেক প্রদান করলেন উলুবেড়িয়া পূর্ব বিধানসভার বিধায়ক ইদ্রিস আলি। রাজ্যের পুরমন্ত্রী তথা কলকাতার মেয়র ফিরহাদ হাকিমের হাতে ওই চেক তিনি তুলে দেন। বিধায়ক ইদ্রিশ আলির উদ্যোগে এবং পুলিশ কর্তা বিশ্বজিত রাউতের সহযোগিতায় এই চেক প্রদান করা হয়। উপস্থিত ছিলেন সেখ নুরউদ্দিন। মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমের সঙ্গে করোনা ভাইরাস পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা হয়।বিধায়ক ইদ্রিশ আলি উলুবেড়িয়া পূর্ব বিধানসভা কেন্দ্রের মানুষ / শ্রমিক /তীথ’যাত্রী/রোগীরা যারা পশ্চিমবঙ্গের বাইরে আছেন তাদের তাড়াতাড়ি বাড়ি ফেরানোর জন্য ফিরহাদ সাহেবের কাছে অনুরোধ করেন বলে জানিয়েছেন।

বিধায়ক ইদ্রিশ আলি বলেন পশ্চিমবঙ্গের মানুষ এবং অন্যান্য প্রদেশে যারা আছেন তারা খুব কষ্টের মধ্যে দিনযাপন করছেন ।নিজেদের কাছে যা টাকা ছিল তা শেষ হয়ে গেছে, খাবার কেনার জন্য টাকাপয়সা নেই, অথচ অন্যান্য রাজ্যের তরফ থেকে পশ্চিমবঙ্গের বহু মানুষকে খেতে দেওয়া হচ্ছে না। অনেক সময় খাবার চাইতে গেলে লাঠির ঘা খেতে হচ্ছে ।তাদের এই দূর্দশা’র কথা চিন্তা করে তাদের যাতে অবিলম্বে পশ্চিমবঙ্গে ফিরিয়ে নিয়ে আসা হয় সেই ব্যাপারে আবেদন জানানো হয়।পৌরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম মনযোগ সহকারে শুনেন বিধায়ক ইদ্রিশ আলির বক্তব্য ।

তিনি বলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির সঙ্গে আলোচনা করে সঠিক সময়ে সঠিক ব্যাবস্থা নেওয়া হবে ।মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি সহ, আমাদের সকলের, অন্য প্রদেশে আটকে পরা মানুষদের প্রতি সহানুভূতি আছে ।তাদের পশ্চিমবঙ্গে ফিরিয়ে নিয়ে আসার ব্যাপারে ইতিমধ্যেই কাজ শুরু হয়েছে এবং প্রক্রিয়া চলছে ।বিধায়ক ইদ্রিশ আলি আরও বলেন, এই এক লক্ষ টাকা ছাড়াও বিধানসভার তাঁর বেতন থেকে আরও টাকা দেওয়া হবে ।বাইরে প্রদেশে যারা আটকে পরেছেন তাদের কাছে অনুরোধ আপনারা একটু ধৈর্য্য ধরুন ।আমাদের মানবিক মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি যত শীঘ্র সম্ভব পশ্চিমবঙ্গে ফিরিয়ে নিয়ে আসবেন ।মাননীয় পৌরমন্ত্রী তথা কলকাতা পুরসভার মেয়র তথা আমাদের দলের সাধারণ সম্পাদক ফিরহাদ হাকিম এই ব্যাপারে চেষ্টা করছেন ।আমাদের দলের রাজ্য সভাপতি সাংসদ সুব্রত বক্সী এবং দলের মহাসচিব তথা শিক্ষামন্ত্রী পাথ’ চ্যাটার্জি সহ আমরা সকলে আপনাদের পাশে আছি ।

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট