প্রায় দুই বছরের মাথায় ফের পশ্চিম মেদিনীপুরে তিলাবনী গ্রামে অজানা পশুর পায়ের ছাপে আতঙ্ক


সোমবার,১৫/০৬/২০২০
493

পশ্চিম মেদিনীপুর :- প্রায় দুই বছরের মাথায় ফের পশ্চিম মেদিনীপুরে ফিরে এলো অজানা পশুর পায়ের ছাপে আতঙ্ক। বাঘঘোড়া জঙ্গল লাগোয়া তিলাবনী গ্রামে ফের মিললো পায়ের ছাপ। আতঙ্কে রাতের ঘুম উড়েছে গ্রামবাসীদের। রবিবার বিকেলে জঙ্গললাগোয়া গ্রামের রাস্তায় হঠাৎই অজানা জন্তু দেখতে পায় বেশ কয়েকজন গ্রামবাসী। এরপরই গ্রামের রাস্তায় মেলে বেশ কয়েকটি পায়ের ছাপ। মুহুর্তে বাঘের আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে গোটা এলাকায়। যদিও এই পায়ের ছাপ বাঘের বলে মানতে নারাজ বনদপ্তর। বনদপ্তর এর কর্তাদের দাবি এটি হুড়াল জাতীয় কোন প্রাণীর পায়ের ছাপ। তবে গ্রামে যে আতঙ্ক রয়েছে তা মেনে নিয়েছে পিড়াকাঠার রেঞ্জার।

সোমবার সকালে তিলাবনী গ্রামে তিল ধরানোরও জায়গা ছিল না! উত্তেজিত গ্রামবাসীরা ছাড়াও, আশেপাশের গ্রামের উৎসাহী লোকজন, সংবাদমাধ্যমের কর্মীরা এবং বন্যপ্রাণী বিশারদ থেকে শুরু করে পরিবেশ কর্মীরা পৌঁছে গিয়েছিলেন ওই গ্রামে। কিন্তু, আপাতত সকলের আশঙ্কা ও উত্তেজনায় জল ঢেলে দিয়ে বনদপ্তর ও বন্যপ্রাণী বিশারদ’রা জানিয়েছেন ওটি আসলে নেকড়ে (ভারতীয় ধূসর নেকড়ে, Indian Grey Woolf)। পিড়াকাটার রেঞ্জ অফিসার পাপন মোহান্ত জানালেন, “ওই পায়ের ছাপ আসলে নেকড়ের। সাধারণত নেকড়ের পায়ের ছাপ একটু কোনাকুনি আকারের হয়। পায়ের আকারও বাঘের তুলনায় ছোটো।”

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট