“তৃণমূলের পুলিশ প্রশাসন  মাওবাদীদের সঙ্গে মিলে জঙ্গলমহলের বিজেপি কর্মীদের খুন করার পরিকল্পনা করছে”- সায়ন্তন বসু


শনিবার,১৮/০৭/২০২০
387

ঝাড়গ্রাম : তৃণমূলের পুলিশ প্রশাসন  মাওবাদীদের সঙ্গে মিলে জঙ্গলমহলের বিজেপি কর্মীদের খুন করার পরিকল্পনা করছে । শনিবার ঝাড়গ্রামে বিজেপির বিক্ষোভ ডেপুটেশন ও অবস্থান-বিক্ষোভ এক কর্মসূচিতে একথা বললেন বিজেপির রাজ্য সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তন বসু । সায়ন্তন বসু বলেন, আমাদের কাছে খবর আছে এখানকার তৃণমূলের পুলিশ-প্রশাসন মাওবাদীদের সঙ্গে মিলে আমাদের এখানকার বিজেপির কর্মীদের হত্যা করার পরিকল্পনা করছে । এছাড়াও সায়ন্তন বলেন , ভারতীয় জনতা পার্টির কর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা করতে চাই ।পুলিশ প্রশাসন মনে করে যে তারা বিজেপি নেতাদের ফোন ট্যাপ করে বহু বাহাদুর কাজ করছে। আমি তৃণমূল এবং পুলিশদের বলতে চাই আপনারা যদি বিজেপি নেতাদের ফোন ট্যাপ করেন বিজেপির ক্ষমতা আছে আপনাদের ফোন ট্যাপ করার ।

এমপি ফান্ডের টাকা খরচ করছেন না জেলাশাসক ফলে সাধারণমানুষ উন্নয়ন থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন । ঝাড়গ্রামের সাংসদ কুনার হেমব্রাম এলাকার উন্নয়নের জন্য কেন্দ্র থেকে যে টাকা বরাদ্দ করেছে সেই টাকা খরচ করছেন না জেলাশাসক । এদিন জেলা শাসকের বিরুদ্ধে এই অভিযোগ তুলে সায়ন্তন বসু বলেন, এখানকার আমাদের সাংসদ কুনার হেমব্রাম জেলা শাসকের কাছে এলাকার উন্নয়নের জন্য টাকা দিয়েছে । জেলা শাসকের কাছে আমার একটাই প্রশ্ন , এখনো সেই টাকার ব্যবস্থা হলো না কোন এটা তৃণমূলের টাকা না এটা নরেন্দ্র মোদী পাঠিয়েছে কুনার হেমব্রাম এর হাত দিয়ে এলাকার উন্নয়নের জন্য । এছাড়াও সায়ন্তন বসু এদিন বলেন , করোনা পরিস্থিতিতে কাউকেই বিদ্যুতের বিল দিতে হবে না আমাদের সরকার ক্ষমতায় এলেই বিদ্যুৎ বিল মুকুব করব আমরা ।

রাজ্যজুড়ে শাসক দলের সন্ত্রাস, কর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা ও দলীয় কর্মী খুনের প্রতিবাদে জেলাশাসকের দপ্তরে ডেপুটেশন ও অবস্থান বিক্ষোভ কর্মসূচি করা হয় ঝাড়গ্রাম জেলা বিজেপির পক্ষ থেকে । এদিনের কর্মসূচির নেতৃত্বে ছিলেন বিজেপির রাজ্য সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তন বসু । ঝাড়গ্রাম জেলা বিজেপির পার্টি অফিস থেকে বিজেপির বিশাল মিছিল শুরু হয়ে ঝাড়গ্রাম শহরের মেন রাস্তা দিয়ে মিছিল জেলাশাসকের অফিসের উদ্দেশ্যে রওনা হয় । বিজেপির মিছিল ঝাড়গ্রাম শহরের প্রাণকেন্দ্র পাঁচমাথা মোড় পৌঁছতে ঝাড়গ্রাম জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে বিশাল ব্যারিকেড করে মিছিল আটকে দেয়া হয় পাঁচমাথা মোড়ে । ডেপুটেশন দেয়ার জন্য বিজেপি কর্মীদের জেলা শাসকের অফিস যেতে দেয়া হয়নি । পুলিশের সঙ্গে বিজেপি কর্মীদের কথা কাটাকাটি হলোও অপ্রীতিকর কোনো ঘটনা ঘটেনি বলে জানা যায় । ঝাড়গ্রাম শহরের পাঁচমাথার মোড়ে সায়ন্তন বসুর নেতৃত্বে বিজেপির নেতারা একে কে বক্তব্য রাখেন । সায়ন্তন বসুর সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন ঝাড়গ্রাম এর বিজেপি সাংসদ কুনার হেমব্রাম এবং ঝাড়গ্রাম জেলা বিজেপির সভাপতি সুখময় সৎপতি ও জেলা সাধারণ সম্পাদক অবনী ঘোষ । দীর্ঘক্ষণ বিজেপি নেতারা বক্তব্য রাখার পর জেলাশাসককে ডেপুটেশন না দিয়েই ফিরে যায় সায়ন্তন বসু সহ বিজেপি কর্মীরা।

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট