টাকা বরাদ্দ হলেও দীর্ঘ ৭ বছরেও সংস্কার সম্পূর্ণ হয়নি রাস্তার, দুর্ভোগে এলাকাবাসী


মঙ্গলবার,০৪/০৮/২০২০
274

পশ্চিম মেদিনীপুর:- টাকা বরাদ্দ হলেও দীর্ঘ ৭ বছরেও সংস্কার সম্পূর্ণ হয়নি রাস্তার, দুর্ভোগে এলাকাবাসী। সম্পূর্ণ রাস্তার জন্য জেলাপরিষদে জমা রয়েছে ৪ কোটি টাকা, আবারও বরাদ্দ হচ্ছে ১ কোটি কিন্তু সেই টাকা খরচ না হওয়ায় দীর্ঘ ৭ বছরেও সম্পূর্ণ হয়নি রাস্তার সংস্কারের কাজ। অথচ টাকা পড়ে রয়েছে পশ্চিমমেদিনীপুর জেলা পরিষদে।পশ্চিমমেদিনীপুরের বেলদা থানার খাকুড়দার কাছে ধনেশ্বরপুর থেকে মােহনপুর পর্যন্ত ২৪ কিমি বিস্তীর্ণ এই রাস্তা। নারায়ণগড়, দাঁতন-২ ও মােহনপুর ব্লকের মধ্যে যোগাযোগের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এই রাস্তা তৈরির কাজ শুরু হয়েছে সেই ২০১৩ সালের ডিসেম্বরে। মােহনপুরের দিক থেকে নারায়ণচক পর্যন্ত রাস্তাটি তৈরি হয়ে গেলেও এখনও রাস্তাটি তৈরির কাজ অসম্পূর্ণ রয়ে গিয়েছে ধনেশ্বরপুর থেকে তুরকা পর্যন্ত। আট কিমি ব্যাপি এই রাস্তাটি এখন যাতায়াতের একেবারে অযােগ্য হয়ে গিয়েছে। তার মধ্যে দাঁতন ২ ব্লকের খন্ডরুই থেকে তুরকা পর্যন্ত রাস্তার একেবারে বেহাল দশা। সামান্য বৃষ্টিতে গােটা রাস্তাটিতে এক একটি ডােবা তৈরি হয়।

ফলে ক্ষোভ বাড়ছে বাসিন্দাদের মধ্যে। আর রাস্তাটি পুরােপুরি তৈরি না হওয়াতে দাঁতন-২ নম্বর ব্লকের সাবড়া, তুরকা, জেনকাপুর ও মােহনপুর ব্লকের শিয়ালসাই গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার বিস্তীর্ণ মানুষের দুর্ভোগ চরমে উঠেছে। স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযােগ, বেহাল রাস্তায় আকছার ঘটছে দুর্ঘটনা।এলাকায় থাকা দুটি হাসপাতালে অ্যাম্বুলেন্সে রোগী নিয়ে যেতে সমস্যা পড়তে হয় বাসিন্দাদের। বারবার প্রশাসন থেকে জন প্রতিনিধি সকলের কাছে দ্বারস্থ হয়েও কোন লাভ হয়নি।পথ অবরোধ থেকে নানা আন্দোলন সবই সারা হয়েছে। কিন্তু রাস্তা সংস্কার রয়েছে সেই তিমিরেই।

তবে এদিকে আশার বাণী শুনিয়েছেন জেলা পরিষদের পূর্ত কর্মাধ্যক্ষ নির্মল ঘােষ। তিনি বলেন জেলা পরিষদের অন্তর্গত এই রাস্তাটির বাকি কাজ করার জন্য জেলা পরিষদে চার কোটি টাকা রয়েছে। তার সঙ্গে আর ১ কোটি টাকা যােগ করে মােট পাঁচ কোটি খরচ করে রাস্তাটির বাকি কাজ করা হবে।
যদিও দীর্ঘ ৭ বছরে বহুবার আশ্বাস পেয়েও কাজ না হওয়ায় বাস্তবায়নের বিষয়ে সন্দিহান এলাকাবাসী।

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট