ঝাড়গ্রামের প্রশাসনিক বৈঠক থেকে মাওবাদী সতর্কতা মমতার


বুধবার,০৭/১০/২০২০
352

সম্প্রতি জঙ্গলমহলে ফের মাওবাদী আনাগোনা নিয়ে গুঞ্জন শুরু হয়েছিল। মাওবাদীদের নাম করে পোস্টার উদ্ধারেরও কথা শোনা গিয়েছিল। এই অবস্থায় ঝাড়গ্রাম জেলায় প্রশাসনিক সভা করলেন মমতা ব্যানার্জি। লোকসভা ভোটের বিপর্যয়ের পর এই প্রথমবার ঝাড়গ্রাম এলেন তিনি। বৈঠক থেকে এলাকায় মাওবাদী তৎপরতা নিয়ে সতর্ক করলেন জনপ্রতিনিধি থেকে প্রশাসনিক কর্তাদের। নাম না করে বিজেপিকে বিঁধে জানিয়ে দিলেন, বহু কষ্ট স্বীকার করে জঙ্গলমহলে শান্তি ফিরেছে। অশান্তির আমদানি করলে মানুষ রুখে দাঁড়াবে।

পশ্চিম মেদিনীপুরের পর বুধবার ঝাড়গ্রাম জেলার প্রশাসনিক বৈঠকে বসেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। সেখানে মাওবাদী সমস্যা নিয়ে তৃণমূলস্তরের জনপ্রতিনিধিদের সঙ্গে ওয়ান টু ওয়ান কথা বললেন মমতা। বলেন, অনেক টাকা নিয়ে বহিরাগতরা ভোটের সময় আসে। এলাকাটা কিনে নিয়ে তারপর মাওবাদীদের ঢুকিয়ে দিয়ে মানুষকে বিপদে ফেলে চলে গেল, এটা চলবে না। শান্তির জায়গায় অশান্তি আমদানি করলে মানুষ রুখে দাঁড়াবে, শান্তির জন্য লড়াই করবে।কিন্তু বৈঠকের শেষের দিকে রাজ্য পুলিশের ডিজিকেও মাওবাদী গতিবিধি নিয়ে প্রশ্ন করেন মমতা। জানতে চান, নজরদারি ঠিকঠাক চলছে তো? দেখবেন, টাকার বান্ডিল নিয়ে গোলমাল করতে না পারে। আমার কাছে খবর আছে, মাওবাদীদের পুরনো নেতাদের নিয়ে এলাকা ঘুরে গিয়েছে। মমতা বলেন, এসব টলারেট করনো না। অনেক কষ্টে জঙ্গলমহলে শান্তি অর্জন করা গিয়েছে। শান্তি যেন বজায় থাকে।

এলাকার স্থানীয় জনপ্রতিনিধি দুলাল মুর্মুকেও মাওবাদী সমস্যা যেন নতুন করে মাথাচাড়া না দেয় তা নিয়ে সতর্ক করে দেন মুখ্যমন্ত্রী। জঙ্গলমহলে মাওবাদী গোলমাল লাগিয়ে রাজনৈতিক ফায়দা তোলার চেষ্টা করছে বিজেপি, বলে অভিযোগ করে তৃণমূল। এই অবস্থায় জঙ্গলমহলে দাঁড়িয়ে বিজেপির নাম না করে মমতা ব্যানার্জি অভিযোগ করলেন, টাকা ছড়িয়ে মাওবাদী জিগির তুলে আসলে বিজেপি ভোট বৈতরণী পেরোতে চাইছে। পাশাপাশি মানুষকে সজাগ থাকার বার্তা দিয়ে এই পদক্ষেপ মোকাবিলারও সম্ভাব্য দাওয়াই দিয়ে রাখলেন মুখ্যমন্ত্রী।

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট