বিজয়ার শুভেচ্ছা জানাতে কালীঘাটের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে না আসার আবেদন


শুক্রবার,২৩/১০/২০২০
697

কলকাতা: দুর্গা পুজোয় রাজ্যের সর্বত্রই এই করোনা পরিস্থিতিতে রাজ্য সরকার এবং প্রশাসনের তরফ থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার কথা বলা হয়েছে। মাস্ক ব্যবহার করা, স্যানিটাইজেশন করার কথা প্রশাসনের তরফ থেকে বলা হয়েছে। শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখার কথা বলা হচ্ছে। রাজ্য সরকার এবং প্রশাসনের এই নির্দেশ যাতে যথাযথভাবে কার্যকরী হয় তার জন্য প্রশাসন সব ধরনের ব্যবস্থা নিয়েছে। এ বছর করোনা আবহে তৃণমূল কংগ্রেসের সর্বভারতীয় নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কে যাঁরা প্রতিবছর বিজয়া দশমীর শুভেচ্ছা জানাতে আসেন তাদের শুভেচ্ছা গ্রহণ এবার দলনেত্রীর পক্ষে নেওয়া সম্ভব নয় বলে জানিয়েছেন দলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়। এক সাংবাদিক সম্মেলনে পার্থবাবু বলেন, তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মী সমর্থক থেকে শুরু করে শুভানুধ্যায়ী মানুষ ও সমাজের বিশিষ্ট জনেরা শুভ বিজয়ার শুভেচ্ছা জানাতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দলের কালীঘাটের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে প্রতিবছর আসেন। এবছর করোনা পরিস্থিতির জন্য স্বাস্থ্যবিধি জারি তা সম্ভব নয়।

প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদিকে এদিন কটাক্ষ করলেন রাজ্যের শিক্ষা মন্ত্রী। তিনি বলেন, নরেন্দ্র মোদি বাঙালিয়ানা দেখানানোর জন্য মুখস্ত করে কিছু কথা বলে গেলেন। তাঁর কাছে প্রশ্ন জাতীয় শিক্ষানীতিতে বাংলার মতো এই মধুর ভাষাকে কেন বাদ দেওয়া হল। প্রধানমন্ত্রী নিজেই বাংলার সংস্কৃতির ঐতিহ্যের কথা মুখস্ত করে বললেন। তাহলে বারবার বলার পরও জাতীয় শিক্ষানীতিতে ধ্রুপদী ভাষা হিসাবে বাংলাকে গণ্য করা হলো না কেন, প্রশ্ন পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের। বাংলাকে সব দিক থেকে যে ভাবে উপেক্ষা করা হয়েছে তার জবাব বাংলার মানুষ দেবে। মন্তব্য রাজ্যের শিক্ষা মন্ত্রীর।

বিজ্ঞাপন

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট