জামিন নিয়ে মতভেদের কারণেই মাঝের সময়ে ৪ নেতাকে গৃহবন্দি করার প্রস্তাব


শুক্রবার,২১/০৫/২০২১
468

গৃহবন্দি করার সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানালেন সিবিআইয়ের আইনজীবী তুষার মেহতা। উচ্চতর বেঞ্চে যাবেন অভিষেক মনু সিঙ্ঘভি। সিঙ্ঘভি আদালতকে বললেন, ‘‘সাধারণ অভিযুক্তদের সঙ্গে এদের তুলনা করা হচ্ছে কেন? কোভিড পরিস্থিতিতে এদের দরকার।’’

মামলা যদি বৃহত্তর বেঞ্চে পাঠানো হয়। তবে আজই পাঠানো হোক। বিষয়টি দ্রুত সমাধান করতে হবে। আমরা চাই এ ব্যাপারে দ্রুত সিদ্ধান্ত হোক, আদালতকে বললেন তৃণমূল সাংসদ এবং আইনজীবী কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় কোর্টে কল্যাণ ও তুষারের মধ্যে কথা কাটাকাটি। কল্যাণের প্রস্তাবে বাধা দিলে সলিসিটর জেনারেলকে তিনি বলেন, ‘‘আপনার যখন কথা বলছিলেন, তখন তো আমি বাধা দিই নি। আপনি আমার কথায় বাধা দিচ্ছেন কেন?

বিচারপতি বললেন, জামিন নিয়ে মতভেদের কারণেই মাঝের সময়ে ৪ নেতাকে গৃহবন্দি করার প্রস্তাব। আদালতকে কল্যাণ বললেন, ‘‘গোটা দেশ এই মামলায় নজর রাখছে। বিচারপতিদের উচিত এমন উদাহরণ তৈরি করা যাতে মানুষ বোঝেন বিচার ব্যবস্থা আসলে তাঁদেরই পক্ষে।’’

সিবিআইয়ের আইনজীবীর কথায় সিঙ্ঘভির পাল্টা প্রশ্ন, ‘‘একজন মন্ত্রীর পক্ষে সব কাজ বাড়িতে থেকে করা সম্ভব নয়। কোভিড পরিস্থিতিতে বাড়িতে বসে দফতরের ফাইল ছাড়বে কী করে?’’ ফিরহাদ না থাকায় কোভিড পরিস্থিতিতে সমস্যায় পড়ছে রাজ্য। জবাবে সিবিআইয়ের আইনজীবী জানালেন, ‘‘গৃহবন্দি হলেও উনি তো বাড়িতে থেকে কাজ করতে পারবেন।’’ কোভিড পরিস্থিতিতে রাজ্যে ফিরহাদের ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ। তাঁর অবর্তমানে অনেক জায়গায় স্যানিটাইজেশন করা যাচ্ছে না বলে আদালতকে জানালেন সিঙ্ঘভি। ৪ নেতা-মন্ত্রীকে গৃহবন্দি করার রায় দেওয়ার পর সাময়িক বিরতি নিয়েছিল হাই কোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ। বিরতি শেষে ফের শুনানি শুরু। অভিষেক বললেন, ‘‘দুই বিচারপতির মধ্যে মতভেদ হলে, তৃতীয় বেঞ্চের কাছে যাওয়া উচিত বলে মনে করি।’’ কল্যাণ বললেন, সবার আগে কোভিড পরিস্থিতির কথা মাথায় রাখতে হবে। ২৪ ঘন্টা করোনা সংক্রান্ত কাজের সঙ্গে যুক্ত থাকেন ফিরহাদ। কলকাতার মানুষ ফোন করলেও পদক্ষেপ করেন তিনি। ৭ দিনে ২৪ ঘণ্টাই এই কাজের মধ্যে থাকেন। তাই সব দিক বিচার করে সিদ্ধান্ত নিক আদালত। কল্যাণ বললেন, সবার আগে কোভিড পরিস্থিতির কথা মাথায় রাখতে হবে। ২৪ ঘন্টা করোনা সংক্রান্ত কাজের সঙ্গে যুক্ত থাকেন ফিরহাদ। কলকাতার মানুষ ফোন করলেও পদক্ষেপ করেন তিনি। ৭ দিনে ২৪ ঘণ্টাই এই কাজের মধ্যে থাকেন। তাই সব দিক বিচার করে সিদ্ধান্ত নিক আদালত। নেতা-মন্ত্রীদের গৃহবন্দি করার বিরুদ্ধে আর্জি বৃহত্তর বেঞ্চে যাবে কি না তা নিয়ে কিছুক্ষণের মধ্যেই রায় জানাবে আদালত।

গৃহবন্দি করার সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আবেদন দুপুরেই শুরু করা হোক, আদালতে প্রস্তাব কল্যাণের। বললেন, ‘‘সিবিআই যদি আদালতকে ১৭ মে সন্ধ্যা সাড়ে ৫টার সময় শুনানির অনুরোধ জানাতে পারে, তবে আমরা বলতে পারব না কেন?’’

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট