মোদিকে টেক্কা মমতার


বুধবার,০৪/০৮/২০২১
497

মোদি সরকার যা করে দেখাতে পারেনি তা করে দেখাল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার। সারাদেশে যখন বেকারত্বের কারণে আত্মহত্যার ঘটনা ঊর্ধ্বমুখী সেখানে পশ্চিমবঙ্গে তা একেবারেই নগণ্য। বলছে কেন্দ্রীয় শ্রমমন্ত্রকের দেওয়া তথ্য।
২০১৪ সাল থেকে কেন্দ্রে ক্ষমতায় নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বাধীন এনডিএ সরকার। লোকসভায় কেন্দ্রীয় শ্রম মন্ত্রকের পেশ করা রিপোর্ট বলছে ২০১৬ থেকে ২০১৯ – এই চার বছরে বেকারত্বের কারণে আত্মহত্যার ঘটনা বেড়েছে দেশে। ব্যাতিক্রম একমাত্র পশ্চিমবঙ্গ। বাংলায় এই হার ক্রমশ নিম্নমুখি।
কেন্দ্রীয় সরকারের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের আওতাধীন ন্যাশনাল ক্রাইম রেকর্ড ব্যুরো (NCRB)- র কাছে পরিসংখ্যান জমা দেয় রাজ্যগুলি। NCRB এক্সিডেন্টাল ডেথস অ্যান্ড সুইসাইডস ইন ইন্ডিয়া প্রকাশ করে। তার উপর ভিত্তি করেই বেকারত্বের কারণে আত্মহত্যার ঘটনা পরিসংখ্যান সংসদের জমা দিয়েছে শ্রম মন্ত্রক।
বিজেপি শাসিত উত্তরপ্রদেশের ২০১৭, ২০১৮ এবং ২০১৯ সালে আত্মহত্যার ঘটনা ক্রমশ বৃদ্ধি পেয়েছে। ২০১৯ সালে বেকারত্বের কারণে সারা দেশের মধ্যে সবথেকে বেশি আত্মহত্যার ঘটনা ঘটেছে বিজেপি শাসিত কর্নাটকে। কেন্দ্রীয় শ্রমদপ্তরের রাষ্ট্রমন্ত্রী রামেশ্বর তেলি লিখিতভাবে লোকসভায় এই তথ্য পেশ করেন।
দেশে ঊর্দ্ধমুখি আত্মহত্যা:
২০১৬ সালে দেশে বেকারত্বের কারণে আত্মহত্যার ঘটনা ২২৯৮ টি
২০১৭ সালে দেশে বেকারত্বের কারণে আত্মহত্যার ঘটনা ২৪০৪ টি
২০১৮ সালে দেশে বেকারত্বের কারণে আত্মহত্যার ঘটনা ২৭৪১ টি
২০১৯ সালে দেশে বেকারত্বের কারণে আত্মহত্যার ঘটনা ২৮৫১ টি।
দেশে মোদি সরকার যা করে দেখাতে পারেননি পশ্চিমবঙ্গে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার তা করে দেখিয়েছেন। কর্মসংস্থানের হাজার সুযোগ তৈরি করে আত্মহত্যা কমানো সম্ভব হয়েছে এরাজ্যে।
লোক সভায় পেশ করা সম মন্ত্রকের তথ্য অনুযায়ী পশ্চিমবঙ্গে বেকারত্বের কারণে আত্মহত্যার ঘটনা
২০১৬ সালে ১০৯ টি, ২০১৭ সালে ৯৫ টি, ২০১৮ সালে ৭৫ টি এবং ২০১৯ সালে ৪০ টি।
কেন্দ্রীয় সরকারের শ্রম মন্ত্রকের দেওয়া তথ্য স্পষ্টতই প্রমান করছে আত্মহত্যার ঘটনা কমেছে পশ্চিমবঙ্গে।

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট