বিজেপির ইলেকশন ম্যানেজমেন্ট কমিটি, ঠাঁই নেই বঙ্গের কেন্দ্রীয় মন্ত্রীদের


মঙ্গলবার,২৬/১২/২০২৩
616

লোকসভা ভোটের স্ট্র্যাটেজি ঠিক করতে শহরে শাহ-নাড্ডা। রাজ্য বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্বের সঙ্গে বৈঠক করেন তাঁরা। আগেই বঙ্গ বিজেপিকে রাজ্যে ৩৫ আসনের টার্গেট বেঁধে দিয়েছেন অমিত শাহ। টার্গেট পূরণে বঙ্গ বিজেপির কী করনীয় তার সুর বেঁধে দিলেন বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্ব। গঠন করা হল বঙ্গ বিজেপির ইলেকশন ম্যানেজমেন্ট কমিটি।
টার্গেট ৪২ এ ৩৫। লক্ষ্যমাত্রা বেঁধে দিয়েছেন দলের শীর্ষ নেতা অমিত শাহ। লক্ষ্য পূরণে এবার রণকৌশল বেঁধে দিলেন শাহ-নাড্ডারা। কলকাতা সফরে এসে মঙ্গলবার দলের রাজ্য নেতাদের নিয়ে বৈঠক করলেন তাঁরা। আর এই বৈঠক থেকে ১৫ জনের ‘ইলেকশন ম্যানেজমেন্ট টিম’ গঠন করেছে বিজেপির দুই শীর্ষনেতা। পশ্চিমবঙ্গ থেকে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায় ঠাঁই পাওয়া কোন মন্ত্রীর স্থান হয়নি এই কমিটিতে। এমনকি ওই কমিটিতে জায়গা হয়নি মিঠুন চক্রবর্তী থেকে শুরু করে অনেক গুরুত্বপূর্ণ নেতার। বিজেপি সূত্রের খবর এই কমিটিতে আছেন, রাজ্য বিজেপির ১০ নেতা। ইলেকশন ম্যানেজমেন্ট কমিটিতে ভিন রাজ্যের পাঁচ নেতাকেও রাখা হয়েছে।
এই কমিটিতে যে ১০ রাজ্য নেতা স্থান পেয়েছেন তারা হলেন:

সুকান্ত মজুমদার, শুভেন্দু অধিকারী, দিলীপ ঘোষ, রাহুল সিনহা, অমিতাভ চক্রবর্তী, লকেট চট্টোপাধ্যায়, অগ্নিমিত্রা পাল, দীপক বর্মণ, জ্যোতির্ময় সিং মাহাতো, জগন্নাথ চট্টোপাধ্যায়

১৫ জনের বিশেষ এই কমিটিতে রাজ্য বিজেপির ১০ নেতার পাশাপাশি রয়েছেন পাঁচজন কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি। আশা লাকড়া, মঙ্গল পাণ্ডে, সুনীল বনসল, অমিত মালব্য ও সতীশ ধন্ডের মতো কেন্দ্রীয় নেতাদের এই কমিটিতে রাখা হয়েছে। বিজেপি সূত্রে খবর, প্রাথমকি রণকৌশল ও রাজ্যের কোন কোন আসনগুলিতে জোর দেওয়া হবে, তা ঠিক করবে এই ‘ইলেকশন ম্যানেজমেন্ট টিম’। ইলেকশন ম্যানেজমেন্ট কমিটিতে ঠাঁই হয়নি

নিশীথ প্রামাণিক, জন বার্লা, শান্তনু ঠাকুর, সুভাষ সরকার, মিঠুন চক্রবর্তী, স্বপন দাশগুপ্তকে, দেবশ্রী চৌধুরী, মনোজ টিগ্গা

অমিত শাহ ও জগৎপ্রকাশ নাড্ডার বঙ্গসফর এবং বিজেপির রণকৌশল সাজানো নিয়ে কটাক্ষ করেছেন তৃণমূল কংগ্রেস নেতা তথা রাজ্যের মন্ত্রী ব্রাত্য বসু। তাঁর দাবি, বিজেপি যত কৌশল সাজাবে তৃণমূলের আসন তত বাড়বে।
নিউটনের পাঁচতারা হোটেলে শীর্ষ নেতৃত্বের সঙ্গে বৈঠকের পাশাপাশি ন্যাশনাল লাইব্রেরীতে দলীয় সভায় যোগ দেন অমিত শাহ ও জেপি নাড্ডা।বৈঠকের পাশাপাশি এদিন একাধিক কর্মসূচিতে যোগ দেন তাঁরা। উত্তর কলকাতার জোড়াসাঁকোই একটি গুরু দোওয়ারার যান বিজেপির এই দুই শীর্ষ নেতা। কালীঘাট মন্দিরে পুজো দিতেও গিয়েছিলেন তাঁরা।

Loading...
https://www.banglaexpress.in/ Ocean code:

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট