??????? কৃষি দপ্তরের অভিনব উদ্যোগে চাষীরা জমিতে ফোয়ারার মাধ্যমে জল দিতে পারবে Tag


কৃষি দপ্তরের অভিনব উদ্যোগে চাষীরা জমিতে ফোয়ারার মাধ্যমে জল দিতে পারবে

কৃষি দপ্তরের অভিনব উদ্যোগে চাষীরা জমিতে ফোয়ারার মাধ্যমে জল দিতে পারবে

উত্তর দিনাজপুর: চা বাগানের মত করেই এবার থেকে ফোয়ারার মাধ্যমে জমিতে সেচের জল পাবে উত্তর দিনাজপুর জেলারকৃষকরা ।আর তা হবে এবার থেকে প্রধানমন্ত্রী কৃষি সিচাই যোজনার মাধ্যমে।  উত্তর দিনাজপুর জেলারকালিয়াগঞ্জ এর ধনকোল গ্রাম পঞ্চায়েতের লক্ষীপুর গ্রামে এমনই একটি কৃষিজমিতে দেখা গেল প্রধানমন্ত্রী কৃষিযোজনা প্রকল্পে কেমন করে ফোয়ারার মাধ্যমে জমিতে জল দিয়ে কৃষকরা কৃষি কাজ করবে। সে ব্যাপারে জেলাকৃষি আধিকারিক ও ব্লক কৃষি আধিকারিক এলাকার কৃষকদের নিয়ে একটি হাতে-কলমে প্রশিক্ষণ দিতে দেখাযায়। এদিকে ফোয়ারার  মাধ্যমে কেমন করে এই চাষাবাদ করতে হবে এমন পদ্ধতি শিখে এখন ভীষণ খুশি হয়েকৃষকরা জানান,  বছরের বিভিন্ন সময় চাষাবাদ করতে তাদের ভীষণ অসুবিধা দেখা দিত । ঠিকঠাক ভাবে সেচের  সুবিধা না পাওয়ার জন্য।  কিন্তু এবার থেকে আর এই সমস্যা থাকবে না বলেই তাদের মনে হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী কৃষিসিচাই যোজনার মাধ্যমে  ফোয়ারার মাধ্যমে জল চলে  যাবে জমিতে প্রত্যেকটি কোনায় কোনায় যা সাধারণত  চাবাগানে এতদিন দেখে আসছি।উত্তর দিনাজপুর জেলার উপ-কৃষি অধিকর্তা মীর ফারহাদ হোসেন এক প্রশ্নেরউত্তরে বলেন উত্তর দিনাজপুর জেলার কোথাও এখনো এই সেচ প্রকল্প চালু করা হয়নি।আমরা কৃষি দপ্তর উত্তরদিনাজপুর জেলার কালিয়াগঞ্জ ব্লক থেকেই এই প্রধান মন্ত্রী কৃষি সিচায় যোজনার কাজ শুরু করবো।কৃষি মেলায়কৃষকদের জানানোর উদ্দেশ্যই একটি জমিতে এই প্রকল্পের মাধ্যমে কিভাবে সেচ দেওয়া যাবে তা হাতে কলমেদেখিয়ে দেওয়া হল।কালিয়াগঞ্জ ব্লকের কৃষি দপ্তরের সহ-কৃষি অধিকর্তা গোপাল ঘোষ বলেন এই প্রধান মন্ত্রী কৃষিসিচাই যোজনার সুবিধা নিতে গেলে অধিক কোন রকম খরচ হবেনা।কৃষকদের নিজস্ব জমি থাকতে হবে।সহ-কৃষি অধিকর্তা গোপাল ঘোষ বলেন তারা কৃষকদের সাথে ইতিমধ্যেই এ ব্যাপারে এক প্রস্ত আলোচনা করে ছেনবলে জানান।কৃষকরা জলসেচের এই নুতন পদ্বতি দেখে ভীষণ খুশি বলে জানা যায়।

?????????
Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট